বাংলাদেশের ইকমার্সের অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে (Payment Gateway)

কিছু লিখবো বলে বসেছি,সময়টা রাত ৪ টা বেজে ৪৭ মিনিট, রাত জাগা এক পাখি আমি, শৈশব থেকে শুনে এসেছি রাতে নাকি মানুষের আবেগ ও স্বপ্ন গুলো প্রসারিত হতে থাকে। মানব জীবন আবেগের সমষ্টি, আমরা কেও তার বাইরে নই। বন্ধুদের কাছে আন্তরিক ভাবে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি অপ্রাসঙ্গিক কিছু বিষয় টেনে আনার জন্য। প্রসঙ্গে আসি, বাংলাদেশের e Commerce ওয়েবসাইট গুলোর জন্য Online Payment Gateway নিয়ে লেখা শুরু করলাম। কোন তথ্য ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন ও জানাতে ভুলবেন না যেন যাতে করে সবাই সঠিক তথ্য জেনে উপকৃত হতে পারে।

প্রথমে আসি Payment Gateway প্রসঙ্গেঃ

সাম্প্রতিক সময়ের এই র্সববিকশিত তথ্যপ্রযুক্তি ও দ্রুত অগ্রসরমান e Commerce Business  -এর একটি অত্যুৎকৃষ্ট অসুষঙ্গ হচ্ছে এই অনলাইন Payment Gateway বা অনলাইন ওয়ালেট, যা দ্রুত সহজসাধ্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও নিশ্চয়তার প্রতিশ্রুতিতে সর্বপ্রকার অনলাইন লেনদেন সম্পাদনের মাধ্যমে আমাদের অনলাইন কেনাকাটা পক্ষান্তরে আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে আরো সহজ সুন্দর সিকিউর ও উপভোগ্য করে তুলেছে। 

অনলাইন কেনাকাটা, অনলাইন ওয়ালেট বা অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে আজ আমাদের কাছে অতি পরিচিত কিছু শব্দগুচ্ছ। বর্তমান সময়ে অনেকেই মার্কেটে বা শপিংমলে গিয়ে কেনাকাটার চেয়ে ঘরে বসে ইন্টারনেট কানেকটেড কম্পিউটার বা স্মার্টফোনের মাধ্যমে একটি বা দুটি বাটন টিপে তাদের পছন্দের জিনিস কেনাকাটাতেই বেশী ঝুকছেন এবং যতই দিন যাচ্ছে, জ্যামিতিক হারে এই সংখ্যা বাড়ছে। আর এর পেছনে অনেকগুলো কারনের মধ্যে একটি হচ্ছে নগদ টাকা বহনের ঝামেলা বা ঝুকির চেয়ে এক বাটন টিপে ঘরে বসে অনলাইন পেমেণ্ট গেটওয়ে মাধ্যমে দাম পরিশোধ করা। যা কিনা সর্বোচ্চ নিরাপদ ও সর্বপ্রকার ঝুকিমুক্ত।

Eid-ul-adha greetings from sunshine

Payment Gateway কেন প্রয়োজন ?

অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে হলো অনলাইনের মাধ্যমে টাকা পয়সা লেনদেনের এক বিশ্বস্ত ও সহজসাধ্য মাধ্যম যা সাধারণত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর সাথে সাথে ইকমার্স ব্যবসায়িক সাইটগুলো প্রদান করে থাকে অনলাইন ক্রেতাদেরকে অর্থ পরিশোধের সুবিধার্থে। আর এটা হচ্ছে অত্যন্ত দ্রুত সহজসাধ্য সর্বোচ্চ নিরাপদ যা কিনা চিরায়ত ব্যাংক চেক, মানি অর্ডারস ও ব্যাংক ট্রান্সফারের এক ইলেকট্রোনিক প্রতিরুপ। এটা শুধু অনলাইন ভেণ্ডর, অনলাইন নিলাম সংস্থা বা ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোকেই অর্থ লেনদেনের সুবিধা দেয় না বরং তৃনমূল পর্যায়ের গ্রাহকদের মাঝে লেনদেনের সুবিধা দিয়ে থাকে, এবং এর জন্য প্রচলিত ব্যাংক রেটের চেয়ে অনেক কম চার্জ করে থাকে।

Payment Gateway গুলো নিম্নলিখিত সুবিধাসমূহ প্রদান করে থাকে:

  • ক্রেতার ক্রেডিট কার্ডের তথ্যাবলীর ভিত্তিতে অনলাইনে সর্বপ্রকার লেনদেনের টাকা পরিশোধ করে।
  • খুবই কম খরচে বেশীর ভাগে ক্ষেত্রেই এক ডলারের ও কম খরচে একে অন্যের মধ্যে টাকা পয়সা লেনদেন সম্পন্ন করে থাকে।
  • ক্রেতা বা গ্রাহকের ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে সরাসরি অর্থ জমা ও উইথড্রো করে।
  • বেশীর ভাগ কোম্পানীরই নিজস্ব প্রিপেইড কার্ড আছে। তাই ক্রেতা বা গ্রাহকের ব্যাংক কার্ড এমনকি ব্যাংক একাউন্ট না থাকলেও চলে।

বাংলাদেশে Payment Gateway সমূহ কারা প্রদান করে?

এসএসএল কমার্স

এটি হচ্ছে বাংলাদেশের সর্বপ্রথম নিজস্ব অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে, যদি পেপাল, স্ক্রিল মানিবুকারস, পেয়জা এসব নামের ভীড়ে উচ্চারিত একটু কমই হয়। কিন্তু বাংলাদেশের সব বড় বড় ওয়েবসাইট সাইট যেমন-আজকের ডিল, বিডিজবস, নভো এয়ার, ইউনাইটেড এয়ার, রিজেন্ট এয়ারওয়েজ, ডায়মণ্ড ওয়ার্ল্ড, মীনা বাজার, আমরা সহ সমপ্রকৃতির আরো অনেক প্রতিষ্ঠান এদের গ্রাহক।
এর গ্রাহকরা অনলাইন কেনাকাটায় লোকাল ক্রেডিট কার্ড/ডেবিট কার্ড যেমন ভিসা, মাষ্টার কার্ড, ডিবিবিএল, নেক্সাস কার্ড, ব্রাক ব্যাংক ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন সম্পন্ন করতে পারেন। মোবাইল ব্যাংকিং মধ্যে বিকাশ ও রকেট এসএসএল কমার্সের সাথে আছে।

ইজিপে 

বাংলাদেশের আরও একটি নিজস্ব অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে যারা কিনা প্রচলিত সবধরনের ব্যাংক কার্ড যেমন ভিসা কার্ড, মাষ্টার কার্ড, বিকাশ, ডিবিবিএল সহ আরো অন্যান্য কার্ড সাপোর্টেড এবং ক্রেডিট ও ডেবিট উভয়ের মাধ্যমে লেনদেনের সুযোগ দেয়। ইজিপে কর্ত্তৃপক্ষ সব শ্রেণীর গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে তাদের সর্বপ্রকার অনলাইন লেনদেনের চাহিদা মেটাতে চার ধরনের প্যাকেজ প্রবর্তন করেছে। যা নিম্নরুপ-
ক) ওয়েব সার্ভিসেস
খ) ষ্টার্টার প্যাকেজ
গ) প্রফেশনাল প্যাকেজ এবং
ঘ) কর্পোরেট প্যাকেজ
যা থেকে গ্রাহক তাদের পছন্দের প্যাকেজ বুঝে নিতে পারে।

সূর্য্যপে

অনলাইন  Payment Gateway যা কিনা প্রচলিত সব ব্যাংক কার্ডের পাশাপাশি আরও কিছু বিশেষায়িত যেমন-ডিনার্স ক্লাব, এমএক্স সাপোর্টেড; বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী, ঢাকা ওয়াসা, রেড ক্রিসেণ্ট, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূর্য্যপে এর গ্রাহক কাজেই এর কার্য্যকারিতা অনুমেয়।
সূর্য্যপে তিন ধরনের প্যাকেজ চালু রেখেছে:

  • এসএমই
  • বিটুবি
  • প্রিমিয়াম

পোর্টওয়ালেট 

অনলাইন Payment Gateway যারা কিনা লোকাল এবং ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট ও ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে লেনদেনের সুযোগ দেয় এবং প্রচলিত সব ব্যাংক কার্ড সাপোর্টেড। এর সাথে বিকাশের মাধ্যমে মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধার সাহায্যে লেনদেনের সুবিধা তো আছেই। গ্রামীনফোন, রবি, কিউবি, দারাজ, বিক্রয় ও চালডালের মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠান এদের গ্রাহক।

পোর্টওয়ালেটে দুই ধরনের প্যাকেজ চালু আছে-

  • প্রাথমিক প্যাকেজ
  • ব্যবসা পরিকল্পনা

ওয়ালেটমিক্স

বাংলাদেশের আরেক স্বনামধন্য অনলাইন Payment Gateway, যা প্রচলিত অন্য সব পেমেন্ট গেইটওয়ের মতো সর্বপ্রকার ফিচার সমৃদ্ধ এবং গ্রাহকদের সন্তুষ্টি বিধানে অঙ্গীকারাবব্ধ। ওয়ালটন, ইষ্ট ওয়েষ্ট ইউনির্ভাসিটি, জামান আইটি, বিডি অনলাইন শপের মতো প্রতিষ্ঠান এদের গ্রাহক।

আমারপে

বাংলাদেশের আরেকটি উল্লেখ্যযোগ্য অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে যা কিনা প্রচলিত মেজর ডেবিট, ক্রেডিট কার্ডস ও নেক্সাস কার্ড একসেপ্ট করে। বাংলাদেশ সহ আন্তর্জাতিক উভয়ই এবং অপরাপর অন্যান্য বাংলাদেশী অনলাইন পেমেন্ট গেইটওয়ে গুলির মতো সর্বাধিক ফিচার সমৃদ্ধ।

পায়জা বাংলাদেশ 

পায়জা পেমেন্ট গেইটওয়ে, যা কিনা পৃথিবীর ২৫ টি দেশের মুদ্রা সাপোর্ট করে এবং অনলাইনে টাকা গ্রহন ও প্রেরনের এক অনন্য ও বিশ্বস্ত মাধ্যম। এর একটি অনন্য সাধারন বৈশিষ্ট্য হলো যে এর মাধ্যমে দেশের বাইরে টাকা পাঠানো যায় সম্পূর্ন ফ্রি অব কস্টে। এদের দুই ধরনের প্যাকেজ আছে:

  • ব্যক্তিগত প্যাকেজ
  • বিজনেস প্যাকেজ

এই দুই প্রকারের প্যাকেজের প্রাইসিং ও অন্যান্য সুবিধা অসুবিধা সমূহ জানতে ঘুরে আসুন পায়জার অফিসিয়াল সাইট থেকে। 

Payment Gateway  – এর জন্য একাউন্ট খুলতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন ?

⦁ Filled Merchant form (digital copy will be sufficient)
⦁ Trade License
⦁ Certificate of incorporation (for limited Company)
⦁ Company eTIN Certificate (for limited Company)
⦁ Signatory’s eTIN Certificate.
⦁ Photo of Signatories
⦁ NID of Signatories
⦁ Article of Association (for limited Company)

ভাল লাগা থেকে লিখা, পড়ে আপনারা উপকৃত হলেই লেখার সার্থকতা পাবে।
নেপোলিওন হিলের একটি কথা দিয়ে শেষ করছি –
“নিজের লক্ষ্য ও স্বপ্নকে আপনার আত্মার সন্তান হিসেবে লালন করুন, এগুলোই আপনার চূড়ান্ত সাফল্যের নকশা হবে।”

 

ধন্যবাদ
– সোহেল রানা

Leave A Comment