স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার

বর্তমানে ব্যবসা বানিজ্য আর আগের মতো নেই। আধুনিক যুগ আসার সাথে সাথে পরিবর্তন এসেছে ব্যবসা বানিজ্যের ক্ষেত্রেও। বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। এখন কোনো কাজই তথ্য প্রযুক্তি ছাড়া চলে না। তেমনিভাবে ব্যবসার ক্ষেত্রেও স্মার্ট তথ্য প্রযুক্তি বা ডিজিটাল ডিভাইসের ভূমিকা ব্যাপক‌। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যারের ভূমিকা অনেক‌। এর অবদানেই আমাদের দেশের ব্যবসা বানিজ্যের উন্নতি হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও হবে বলে আশা করা হয়।

ব্যবসার ক্ষেত্রে Smart Accounting Software ভূমিকা সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের আগে জানতে হবে স্মার্ট সফটওয়্যার কি এবং এর কি কি সুবিধা রয়েছে এর মধ্যে।

 

স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার কি?

বর্তমানে হিসেব নিকাশের জন্য কম্পিউটারের পাশাপাশি মোবাইল ফোনে যে ধরনের সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় তাকে স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার বলে। সহজ ভাষায় সফটওয়্যার বলতে বোঝায় একটি কম্পিউটার প্রোগ্রামের সেট যা নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করে থাকে। কম্পিউটারের সাহায্যে আমরা যেসব কাজ করে থাকি তার সবই কম্পিউটার সফটওয়্যারের মাধ্যমে সম্পাদন করা হয়।

আমরা কম্পিউটারে যে ক্যালকুলেটর ব্যবহার করি সেটাও একধরনের সফটওয়্যার। এটি একটি নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করে অর্থাৎ ক্যালকুলেশনের কাজ করে। এমন অনেক সফটওয়্যার রয়েছে যাদের কাজের ক্ষেত্রও আলাদা। একেক ধরনের সফটওয়্যার একেক ধরনের কাজ করে থাকে। মোবাইলের যাবতীয় কাজও এখন সফটওয়্যার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। সহজ ভাষায় বলতে গেলে বর্তমানে যেকোনো ডিভাইস সফটওয়্যার ছাড়া অচল বা অযোগ্য। বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই ডিজিটাল সফটওয়্যার ব্যবহৃত হচ্ছে।

 

স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যারের ব্যবহার

অনলাইনের পাশাপাশি ব্যবসা বানিজ্যের ক্ষেত্রেও এই ডিজিটাল সফটওয়্যারের ব্যবসার ব্যাপকভাবে লক্ষণীয়। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এই ডিজিটাল সফটওয়্যারের ব্যবহার অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়। একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার ক্ষেত্রে অনেক ধরনের কাজ সম্পাদন করতে হয়। যেমন: হিসাবরক্ষণ, কর্মকর্তাদের উপস্থিতি রেকর্ড, ব্যাংক সংক্রান্ত হিসাব নিকাশ করাসহ আরো অনেক কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ডিজিটাল সফটওয়্যারের ব্যবহার লক্ষ করা যায়।

কম্পিউটার সফটওয়্যার নিয়ন্ত্রিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কাজ অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের চেয়ে আরো বেশি সুষ্ঠু ও ঝামেলাহীনভাবে হয়ে থাকে। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে এখন অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসার প্রসার ঘটাচ্ছে। ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য ডিজিটাল সফটওয়্যারের ব্যবহার করা হয়। সুতরাং বোঝা যাচ্ছে , ব্যবসার ক্ষেত্রে ব্যাপকভাবে ডিজিটাল সফটওয়্যারের ব্যবহার করা হয়।

 

ব্যবসার প্রসারে ডিজিটাল স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যারের ভূমিকা

একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার এক পর্যায়ে এটিকে প্রসারের প্রয়োজন পড়ে। ব্যবসা প্রসারের সবচেয়ে বড় উদ্দেশ্য হলো এর সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছে নিজের পরিষেবা বা পণ্যের প্রতি তাদের বিশ্বাস অর্জন করে ব্যবসার প্রসার ঘটানো। যেকোনো ব্যবসা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য এর পণ্যের প্রমোশন বা এডভার্টাইজেশনের পাশাপাশি ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রয়োজন পড়ে।  ছোট বড় যেকোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রেই এই ডিজিটাল মার্কেটিং খুব প্রয়োজন।  ক্রেতাদের সাথে সুসম্পর্ক রাখার একটি বড় হাতিয়ার হলো ডিজিটাল মার্কেটিং।

আগে যখন Smart Accounting Software ছিল না তখন ব্যবসায়ীদের তাদের ব্যবসায়ের প্রসারের জন্য বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হতো। আর এখন এই কম্পিউটার বিজ্ঞানের প্রসারের সাথে সাথে ব্যবসায়ীরা তাদের হিসাবরক্ষণ থেকে শুরু করে ব্যবসার যাবতীয় কার্যাবলী ডিজিটাল সফটওয়্যার ব্যবহার করে সম্পাদন করে থাকে। ব্যবসার বিভিন্ন বিভিন্ন ডিপার্টমেন্ট পরিচালনার জন্য এই স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়।ডিজিটাল সফটওয়্যার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রসারে যেসব ভূমিকা পালন করে থাকে তা বর্ণনা করা হলো:

 

  • স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের গ্রাহক সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে দক্ষতার সাথে সেগুলো পরিচালনা করতে সহায়তা করে।
  • ব্যবসা মালিকগণ তাদের বেতনভিত্তিক সিস্টেম সংহত করতে সক্ষম হয় ডিজিটাল সফটওয়্যার ব্যবহার করে।
  • ব্যবসার একাউন্টিং রেকর্ড গুলো সুষ্ঠুভাবে সংরক্ষণ অত্যন্ত সহজ হয়ে উঠেছে সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে।
  • ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কর্মক্ষেত্রগুলোর মধ্যে সুরক্ষা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সফটওয়্যার অনেক সহায়তা করে থাকে।
  • ব্যবসার প্রয়োজনে বিভিন্ন প্রকল্প প্রণয়নের ক্ষেত্রেও এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  • বিভিন্ন পণ্য সম্পর্কে তথ্য হালনাগাদ করতে ও রেকর্ড সংরক্ষণ করতে সহায়তা করে।
  • ব্যবসার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন ডকুমেন্ট সহজেই সফটওয়্যারে সংরক্ষণ করা যায় এবং তা সহজেই খুঁজে বের করা যায়।
  • সঠিক সময়ে ,সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য সব ধরণের সঠিক তথ্যের যোগান পাওয়া যায় ব্যবসায়ে Smart Accounting Software ব্যবহারের মাধ্যমে।
  • এটি ব্যবহারে এক স্থানে বসে সবকিছু সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়।
  • এটি ব্যবসায়ীদের সময় ও খরচ অনেকাংশে বাঁচিয়ে দেয়।

 

একটি ভালো ও সুষ্ঠু সফটওয়্যার সিস্টেম ব্যবহারের মাধ্যমে বর্তমানে ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা প্রসার করতে সক্ষম। ব্যবসায় এর জন্য এই ধরনের স্মার্ট একাউন্টিং সফটওয়্যার সানসাইন আইটি থেকে তৈরি করে নিতে পারবেন।